ঢাকা      মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭
IMG-LOGO
শিরোনাম

‘‘মনডায় চায় বিষ খাইয়া সবাই একসাথে মইরা যাই’’

IMG
18 September 2020, 2:03 PM

গোপালগঞ্জ, বাংলাদেশ গ্লোবাল : স্বামী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে রাশিদা বেগমের সংসার। স্বামী জামাল শেখ একজন দরিদ্র কৃষক। কোন রকমে দিন চলে পরিবারটি। এরই মধ্যে বিরল রোগ প্যানসাইটোপেনিয়ায় আক্রান্ত হন বড় ছেলে সবুজ শেখ। অর্থের অভাবে ছেলের চিকিৎসা করতে পারছেন না।

আক্ষেপ নিয়ে তিনি বলেন, চোখের সামনে ছেলের এই অবস্থা অথচ কিছুই করতে পারছি না। গরীবের আত্মীয়-স্বজনও গরীব হয় মনডায় চায় বিষ খাইয়া সবাই একসাথে মইরা যাই। যুবক ছেলেকে বাঁচাইতে না পারলে মইরা যাওয়াই ভালো। কে দেবে সবুজের চিকিৎসার এতো টাকা?

দুই বছর যাবত বিরল রোগ প্যানসাইটোপেনিয়ায় আক্রান্ত কোটালীপাড়া উপজেলার ঘাঘর কান্দা গ্রামের সবুজ শেখ (২১)। টগবগে এই যুবক এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে থেকে আকুতি বাঁচার জন্য। তার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ১৫ লক্ষ টাকা। কিন্তু দরিদ্র পরিবারের পক্ষে এত টাকা যোগাড় করা সম্ভব না হওয়ায় তার চিকিসা চলছে ঢিলে তালে।

জানাগেছে, হঠাৎ করে একদিন অসুস্থ হয়ে পড়ে সবুজ। অসুস্থ হওয়ার পর দেশের বিভিন্ন চিকিৎসক ও কবিরাজের কাছে ছেলেকে নিয়ে ছোটছুটি করেছেন দরিদ্র পিতা। এক বছর পর যখন জানতে পারেন ছেলে বিরল রোগ প্যানসাইটোপেনিয়ায় আক্রান্ত ততোদিনে পুরোপুরি নিঃস্ব হয়ে পরিবারটি।

অবশেষে নিজেদের শেষ সম্বল এক টুকরো জমি বিক্রি করে দুই লক্ষ টাকা নিয়ে চিকিৎসার জন্য সবুজকে নিয়ে ভারতের সিএমসি হাসপতালে ছুটে যান তাঁর বাবা। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সেখানকার চিকিৎসকেরা জানান অতি দ্রুত সবুজের শরীরে বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে। সব মিলিয়ে খরচ হবে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা। টাকা না থাকায় চিকিৎসা না করিয়েই ভারত থেকে দেশে ফিরে আসতে হয় সবুজকে।

এদিকে ক্রমাগত সবুজের শাররীক অবস্থার অবনতি ঘটছে। সবুজের চিকিৎসার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এক লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন। তাও শেষে হয়ে যায় ওষুধ ও রক্তের যোগান দিতে। বেঁচে থাকার জন্য সবুজকে প্রতি মাসে ৭ থেকে ৮ ব্যাগ রক্ত নিতে হচ্ছে। প্রতিদিন লাগে প্রায় ৫০০ টাকার ওষুধ। সব মিলিয়ে প্রতি মাসে খরচ হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা। আর কূলিয়ে উঠতে পারছে না সবুজের পরিবার। চিকিৎসা চালাতে ধার-দেনা ও এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে সবুজের পরিবার এখন দেউলিয়া হয়ে যাবার উপক্রম।

বাবা-মায়ের সামনে যুবক বয়সী ছেলের এই করুণ অবস্থায় ভেঙ্গে পড়েছেন তারা। সবুজের এই চরম দুর্দশার কথা জানতে পারে জ্ঞানের আলো পাঠাগার। ঢাকা মেডিকেল কলেজের বোন ম্যারু ট্রান্সপ্লান্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা: মাফরুহা আক্তারের কাছে দেখানো হয় সবুজকে। যেহেতু অন্যের শরীরের বোন ম্যারু সবুজের শরীরে ট্রান্সপ্লাট করতে হবে তাই সবুজের বোন ও ভাইয়ের বোন ম্যারু পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় ঢাকায়। পরীক্ষায় সবুজের বোন ম্যারুর সাথে তার ভাই নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া রমাজান শেখ ও বোন চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ুয়া লামিয়া খানমের বোন ম্যারু পুরোপুরি ম্যাচিং হয়।

গত ১২ সেপ্টেম্বর টেস্ট রিপোর্ট দেখে দুই মাসের মধ্যে সবুজের বোন ম্যারু ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে বলে জানান চিকিৎসক। অপারেশন ও অপারেশন পরবর্তী খরচসহ ১৫ লক্ষ টাকা জোগাড় রাখতে বলেন তিনি। বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে গিয়েও সবুজের চিকিৎসার জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হওয়ায় অনিশ্চয়তার মাঝে সবুজের পুরো পরিবার। এখন কিভাবে জোগাড় হবে সবুজের চিকিৎসার অর্থ এ চিন্তায় দিন কাটছে পুরো পরিবারটির।

সবুজের মা রাশিদা বেগম বলেন, ছেলের চিকিৎসার খরচ যোগার করতে গিয়ে ভিটে মাটি সব বেঁচে দিয়েছি। এখন অপারেশেনের জন্য ১৫ লাখ টাকা প্রয়োজন। অথচ চিকিৎসার টাকা যোগার করতে পরছি না। চোখের সামনে ছেলেটি মরে যাবে এটা আর সহ্য হচ্ছে না।

সবুজের বাবা জামাল শেখ বলেন, ছেলের চিকিৎসার জন্য ভিটে মাটি সব বেঁচে দিয়েছি। এখন পুরোপুরি নি:স্ব। ছেলের চিকিৎসার জন্য আর কিছুই নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সমাজের বৃত্তবানেরা এগিয়ে না আসলে ছেলেকে আর বাঁচাতে পারবো না।

জ্ঞানের আলো পাঠাগারের সভাপতি সুশান্ত মন্ডল জানান, আমরা মানুষ মানুষের জন্য। আমাদের সামান্য সহযোগীতায় একটা মানুষের জীবন বাঁচাতে পারে। আমরা সবাই যদি একটু একটু সহযোগিতার হাত বাঁড়িয়ে দেই তাহলেই সংগ্রহ হবে সবুজের চিকিৎসার টাকা।

তিনি আরো বলেন, সকলের পাঠানো প্রতিটি টাকা ব্যয় হবে সবুজের চিকিৎসায়। জ্ঞানের আলো পাঠাগার সেই নিশ্চয়তা দিচ্ছে। এনমকি প্রতিটি টাকার হিসেব রাখা হবে এবং তা প্রকাশ করা হবে।

সবুজের চিকিৎসায় সাহায্য পাঠাতে পারেন নিচের বিকাশ বা ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যামে। বিকাশ নম্বর : 01985627690 (পারসোনাল) ও সবুজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট : সবুজ শেখ, সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর : ৬১০ ৪৪০ ১০২ ২৮৭১ সোনালী ব্যাংক, কোটালীপাড়া শাখা। এছাড়াও সবুজের সাথে কথা বলতে বা দেখা করতে চাইলে যোগাযোগ করতে পারেন সবুজের ০১৯৩৮ ৯৮০ ৬৫০এই নম্বরে। জ্ঞানের আলো পাঠাগারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে ফোন করতে পারেন এই নম্বরে ০১৩১২ ৫০৪ ৬৯২।

সাম্প্রতিক খবর জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন