ঢাকা      শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭
IMG-LOGO
শিরোনাম

হবিগঞ্জ সদর উপজেলাতেই স্থাপিত হবে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

IMG
09 October 2020, 4:24 AM

হবিগঞ্জ,বাংলাদেশ গ্লোবাল: সরকারের সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে.এম খালিদ বলেছেন, সারাদেশে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা করোনাকালের সংকটময় মুহুর্তে জনগনের পাশে থেকে কাজ করেছেন। এতে করে আমরা আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীসহ দেশের অনেক গুণিজনকে হারিয়ছি । হবিগঞ্জেও অনেক বরেণ্য মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তবে করোনাকালে হবিগঞ্জের মত দেশের আর কোথাও এত বরেণ্য মানুষের মৃত্যু হয়নি। প্রতিটি মৃত্যুই কষ্টের।

এই হারানোর বেদনায় আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ভেঙ্গে পড়েছিলেন। কিন্তু তিনি সঠিকভাবে হাল ধরায় আল্লাহর রহমতে আমরা আরও বড় ধরনের ক্ষতি থেকে রক্ষা পেয়েছি।

যারা স্বজন হারিয়েছেন আমরা তাদের প্রতি সমব্যাথি। তবে এখন আর মৃত্যু হবে না তা ভাবলে চলবে না। এখনও করোনা চলছে। সকলকে মনে রাখতে হবে জীবন খুবই মূল্যবান। তরুণ ও যুবকদেরকে বাচতে হবে। তারাই আগামী দিনে দেশ পরিচালনা করবে। এর জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। স্বাস্থ্য বিধি মানতে হবে। মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে। নেতাকর্মীরা সঠিকভাবে কাজ করে আওয়ামীলীগকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, জাতীয় সংসদে যেদিন হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস হয় সেদিন আমিও সংসদে ছিলাম। সেখানে যে আইন হয়েছে তাতে বলা হয়েছে হবিগঞ্জ জেলা সদরে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে। এখন কেউ চাইলেও অন্য কোথাও হওয়া সম্ভব নয়। জেলা সদরে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইন হওয়ার ক্ষেত্রে হবিগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ এডভোকেট মো. আবু জাহির সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছেন। জেলা সদরে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এনে দেয়ায় সাংসদ আবু জাহিরের প্রতি হবিগঞ্জবাসীর আজীবন কৃতজ্ঞ থাকা উচিত। যখন কেউ খারাপ কাজ করে তখন এটি ছাত্রলীগ করেছে বলে প্রচার করা হয়। কিন্তু সিলেটে ধর্ষনের ঘটনায় যার কারনে ভিকটিমকে সহযোগিতা পেয়েছে সে যে ছাত্রলীগের সেটি কেউ প্রচার করে না। করোনার সময় যখন স্বজনরা লাশ দাফন করছিলনা তখন ছাত্রলীগ সেই লাশ দাফন করেছে। তাও প্রচার হয়না। ছাত্রলীগের সবাই ভাল। যারা খারাপ তাদের সংখ্যা খুবই নগন্য। প্রত্যেক এলাকার নেতাকর্মীরা এ ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।

তিনি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ পৌর টাউন হলে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু পরিষদ হবিগঞ্জ জেলার সভাপতি এডভোকেট আবুল খায়েরসহ করোনাকালীন সময়ে আওয়ামী পরিবারের নেতৃবৃন্দের মৃত্যুতে আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন।

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট মো. আবু জাহির সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরীর সঞ্চালনায় শোক সভায় উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ জাতীয় কমিটির সাবেক সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকট মনোয়ার আলী, ডা. অসিত রঞ্জন দাস, এডভোকেট লুৎফুর রহমান তালুকদার, জেলা যুবলীগের সভাপতি আতাউর রহমান সেলিম, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি এডভোকেট নিলাদ্রী শেখর পুরকায়স্থ টিটো, হবিগঞ্জ পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান, আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট সুলতান মাহমুদ, মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, এডভোকেট প্রবাল কুমার মোদক, রফিক আহম্মেদ, এডভোকেট আফিল উদ্দিন, এডভোকেট হুমায়ুন কবির সৈকত, এডভোকেট রুহুল হাসান শরীফ, এডভোকেট সৈয়দ আফজাল আলী দুদু, এডভোকেট শাহ ফখরুজ্জামান, রাসেল চৌধুরী, তজম্মুল হোসেন, এডভোকেট আব্দুল মুনতাকিম চৌধুরী খোকন, এডভোকেট সুবীর রায়, স্বপন লাল বণিক, হাবিবুর রহমান খান, পৌর যুবলীগের আহবায়ক ডা. ইসতিয়াক রাজ চৌধুরী ও পৌর ছাত্রলীগের আহবায়ক ফয়জুর রহমান রবিন প্রমুখ।

এর আগে জেলা যুবলীগ ও কটিয়াদি বাজার স্টার নাট্যগোষ্টিসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

সাম্প্রতিক খবর জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

IMG

এ বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন