ঢাকা      শুক্রবার, ০৬ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮
IMG-LOGO
শিরোনাম

গোপালগঞ্জে ৮০৭টি গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার

IMG
19 June 2021, 5:18 PM

গোপালগঞ্জ, বাংলাদেশ গ্লোবাল: গোপালগঞ্জে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে আগামীকাল রবিবার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার দেয়া ৮০৭টি ঘর পাচ্ছেন গৃহহীন পরিবার। রবিবার (২০ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসাবে এ সব ঘর বিতরণ করবেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গোপালগঞ্জের ৫টি উপজেলায় ২য় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপহার ৮০৭টি ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়। ইতিমধ্যে ৫৫৫টি ঘরের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন পরোপুরি হয়েছে। এর মধ্য গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় ২৮১ টি, কাশিয়ানী উপজেলায় ১৩০ টি, মুকসুদপুর উপজেলায় ১১০ টি, কোটালীপাড়া উপজেলায় ৩৪ টি ও টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় ৫০টি ঘর রয়েছে। এসব ঘরে রয়েছে দু’টি কক্ষ, একটি রান্না ঘর, একটি বারান্দা ও একটি বাথরুম। প্রতিটি ঘরের জন্য নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা। বাকী ২৫২টি ঘরের নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

আরো জানা গেছে, আগামীকাল রবিবার (২০ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গোপালগঞ্জে এসব ঘর বিতরণ করবেন। গোপালগঞ্জ অংশে এ উপলক্ষে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে উপজেলা প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রী ঘর উপহার পেয়ে মাথা গোঁজার ঠাঁই পেতে যাচ্ছে গৃহ ও ভূমিহীন পরিবারগুলো। ইতমিধ্যে দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্মাণকৃত ও হস্তান্তরযোগ্য এসব ঘর পরিরদর্শন করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়রে পরিচালক মো: আনিসুর রহমান।

সুবিধাভোগী মো: রমিজ মোল্যা (৫২), আরজু ফকির (২৫), মর্জিনা বেগম (৫০) বলেন, আমাদের জমি ও ঘর না থাকায় আগে আমরা পরের জমি ও ঘরে বসবাস করতাম। এসব ঘরে থাকতে আমাদের অনেক অসুবিধা হত। প্রধানমন্ত্রী আমাদের ঘর দেয়ায় এখন আমরা নতুন ঠিকানা পেয়ে নতুন করে বাঁচার আশা দেখছি। এসব ঘর পেয়ে আমরা খুশি। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে তার দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), মো: ওসমান গনি জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘর বিতরণ অনুষ্ঠান সফলভাবে শেষ করতে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। এর আগে আশ্রায়ণ প্রকল্প-১ এর আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া উপহার ৮৪৮টি পরিবার নিজেদের একটি স্থায়ী ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন। প্রকল্প-২ এ পাচ্ছে আরো ৮০৭টি ঘর। যারা বাকী আছেন তাদেরও পর্যায়ক্রমে এই সুবিধার আওতায় আনা হবে। এ জন্য জেলা ও উপজেলা প্রশাসন আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

বাংলাদেশ গ্লোবাল/এমএন

বাংলাদেশ গ্লোবাল ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

সাম্প্রতিক খবর জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন