ঢাকা      রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
শিরোনাম

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি আসর খেলার রেকর্ড

IMG
15 May 2024, 10:53 AM

স্পোর্টস ডেস্ক, বাংলাদেশ গ্লোবাল: দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর্দা ওঠে। আগামী ২ জুন যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। ২০২২ সাল পর্যন্ত সকল বিশ্বকাপে খেলা ক্রিকেটারের সংখ্যা মাত্র দুইজন। যেখানে রয়েছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান এবং ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। আগামী মাসে এই দুই ক্রিকেটার খেলতে যাচ্ছেন নিজেদের নবম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

২০০৬ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হয় সাকিব আল হাসানের। জাতীয় দলে নিজের যাত্রা শুরুর পর থেকেই নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছেন সাকিব। ২০০৭ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। যা তরুণ সাকিব আল হাসানও খেলেছেন। এরপর ২০০৯ বিশ্বকাপে খেলার পর ২০১০ সালে সাকিব আল হাসান বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেন।

ওই একবারই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অধিনায়ক ছিলেন সাকিব। এরপর ২০১২, ২০১৪, ২০১৬, ২০২১ এবং ২০২২ সালের বিশ্বকাপ দলেও ছিলেন তিনি। আর আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও জায়গা হয়েছে ৩৭ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার। এটাই যে সাকিবের শেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে তা অনেকটাই নিশ্চিত। আটটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা সাকিব আল হাসান ৪৭ উইকেট নিয়ে উইকেট শিকারির তালিকায় সবার উপরে রয়েছেন।

এদিকে সাকিবের মতো রোহিত শর্মাও সবকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছেন। ২০২২ সালে রোহিত ভারতের অধিনায়ক ছিলেন। আর এবারও ভারতের নেতৃত্বে রয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী এই ওপেনার। তবে একদিক থেকে সাকিবের চেয়ে এগিয়ে রোহিত। এই আটটি বিশ্বকাপে সাকিব খেলেছেন ৩৬টি ম্যাচ। আর রোহিত শর্মা খেলেছেন ৩৯টি ম্যাচ। শুধু সাকিবকেই পেছনে ফেলেননি রোহিত, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও এটা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড।

২০২১ সালে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছেন ডেভিড ওয়ার্নার।

এদিকে সচল ক্রিকেটারদের মধ্যে অষ্টম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার অপেক্ষায় রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার এবং বাংলাদেশের মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০০৯ সাল থেকে শুরু করে সকল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ার অভিজ্ঞ ওপেনার ওয়ার্নার। ৩৭ বছর বয়সী এই ওপেনার আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, এটাই তার শেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

আর প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা মাহমুদউল্লাহ ২০২২ সাল বাদে সকল বিশ্বকাপে খেলেছেন। ২০২১ বিশ্বকাপে তো বাংলাদেশ দলের অধিনায়কও ছিলেন রিয়াদ। সেই মাহমুদউল্লাহ মাঝে এক বিশ্বকাপ পর আবারও বাংলাদেশ দলে জায়গা করে নিয়েছেন।

ছয়টি বিশ্বকাপ খেলেছেন মাত্র দুইজন ক্রিকেটার। তারা হলেন ভারতের রবীন্দ্র জাদেজা এবং নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদি। এছাড়াও সচল ক্রিকেটারদের মধ্যে পাঁচটি করে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলা ক্রিকেটারদের মধ্যে রয়েছেন— কেন উইলিয়ামসন, বিরাট কোহলি, জস বাটলার ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।


বাংলাদেশ গ্লোবাল/এইচএম

সবশেষ খবর এবং আপডেট জানার জন্য চোখ রাখুন বাংলাদেশ গ্লোবাল ডট কম-এ। ব্রেকিং নিউজ এবং দিনের আলোচিত সংবাদ জানতে লগ ইন করুন: www.bangladeshglobal.com

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন